নতুন আগত

আহা কি কষ্ট! কি করে ভুলবে সারাজীবনে

 বুধবার কাঠালবাড়ি ফেরিঘাটে ছোট্ট শিশুর করুণ আর্তনাদ বিবেক কে বারবার কাঁপিয়ে দিয়েছিল। আহা! কি কষ্ট: কি কষ্ট, ফেরিতে অতিরিক্ত যাত্রীর ভিড়ে গরমে এবং ঘাটে ফিরে নামতে দেরি হয়।  

ডিহাইড্রেশন ও পানিশূন্যতায় অনেক যাত্রী যখন জ্ঞান হারাচ্ছে বাকিরা এদের কে বাঁচানোর জন্য ফেরিতে যত রকমের পানীয় ছিল সবগুলো খাইয়েচে।

অবশেষে নদী থেকে পানি তুলে এবং শরীর ভিজিয়ে রাখার জন্য যখন হন্তদন্ত হয়ে ছুটছিল ফরিদপুরের এই শিশুটি ও অন্যদের মত অন্য একটি মহিলার কষ্ট দেখে তখন পানি টানতে ব্যস্ত ছিল যাতে সেই মহিলাটি কষ্ট না পায় বেঁচে থাকে ।

ভাগ্যের কি নির্মম পরিহাস, কি নিষ্ঠুর নিয়তি, কতটা কষ্টদায়ক, হৃদয়বিদারক ছেলেটি ফিরে এসে দেখে তার মা’ই মারা গেছে পানিশূন্যতায়। আহা! কি কষ্ট ছেলেটি বুঝতে পারেনি তার মা এইভাবে মারা যাবে।

ফোনে বাড়িতে কাকে যেন বুঝাতেই পারছে না তার মা যে মারা গেছে ।

কে দায় নিবে এই মৃত্যুর ছেলেটি? সরকার? না করোনাভাইরাস ?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *