আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি

এমপি পাপুলকে কুয়েতের আদালতে ৪ বছরের জেল

এমপি পাপুলকে কুয়েতের আদালতে ৪ বছরের জেল: লক্ষ্মীপুর ২ আসনের সংসদ সদস্য কাজী শহিদ ইসলাম পাপুলের ৪ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কুয়েত এর আদালত।

২৮ জানুয়ারি ২০২১ বৃহস্পতিবার কুয়েতের ফৌজদারি আদালতের বিচারক আবদুল্লাহ আল ওসমান ৪ বছরের কারাদন্ডসহ এমপি শহিদুল ইসলাম পাপুলকে ৫৩ কোটি টাকা জরিমানা করে রায় ঘোষণা করেন। খবর- আল-কাবাস ও আল-রাইয়ের;

এমপি পাপুলকে কুয়েতের আদালতে ৪ বছরের জেল

কুয়েতে মানব পাচার ও অর্থ  পাচারের কাজে পাপুলকে সহযোগিতা করার অপরাধে কুয়েতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাবেক কর্মকর্তা মাজেন আল জাররাহসহ দেশটির দুই কর্মকর্তাকে ৪ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

এর সাথে জড়িত সকলকে ১৯ লাখ কেডি বাংলা টাকায় ৫৩ কোটি টাকা অর্থদণ্ড দিয়েছেন বিচারক আবদুল্লাহ আল ওসমান এর আদালত।

২০২০ সালের ৬ জুন রাতে লক্ষ্মীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য পাপুলকে কুয়েতের মুশরিফ এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়।

কাজী শহিদুল ইসলাম পাপুল এর পাচারের শিকার পাঁচ বাংলাদেশির অভিযোগের ভিত্তিতে পাপুলের বিরুদ্ধে মানবপাচার, অর্থপাচার ও ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের শোষণের অভিযোগ এনেছে কুয়েতি প্রসিকিউশন।

অভিযোগের ভিত্তিতে এমপিকে ১৭ দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের পর বর্তমানে রাখা হয়েছে কুয়েতের কেন্দ্রীয় কারাগারে।

কুয়েতি কর্মকর্তাদের কীভাবে কত টাকা ঘুষ দিয়েছেন, সে বিষয়ে রিমান্ডে বিস্তারিত তথ্য দিয়েছেন পাপুল। যা প্রসিকিউটরদের বরাতে প্রকাশ করছে স্থানীয় বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম।

সেখানে নাম আসায় কুয়েতের দুই এমপির বিরুদ্ধেও পাপুলকে বেআইনি কাজে সহযোগিতা এবং অর্থপাচারে জড়িত থাকার আনুষ্ঠানিক অভিযোগ আনা হয়।

মামলার তদন্তের সময় অভিযুক্ত হিসেবে ১৩ জনের নাম উঠে আসে। এর মধ্য থেকে চারজনকে তদন্তকালে বাদ দেয়া হয়।

সাধারণ শ্রমিক হিসেবে কুয়েত গিয়ে বিশাল সাম্রাজ্য গড়া পাপুল ২০১৮ সালে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। তার মালিকানাধীন মারাফি কুয়েতিয়া কোম্পানি পরিচ্ছন্নতাকর্মী নেয়ার কাজ করলেও কুয়েতে অন্যান্য ব্যবসার কাজও বাগিয়েছিলেন পাপুল।

অসহায় বাংলাদেশীদের ব্যবহার করে বিপুল পরিমাণ অর্থের মালিক হয় পাপুল। কর্মীদের দিয়ে কাজ করিয়ে প্রাপ্য অর্থ পরিশোধ না করে কর্মীদের শোষণ করেছে সে।

তাছাড়াও নামমাত্র মূল্যে ভিসা ক্রয় করে বাংলাদেশীদের থেকে ৭ থেকে ৮ লক্ষ পাকা করে বাগিয়ে নিয়েছে এমপি পাপুল ও তার সহযোগীরা।

বাংলাদেশীদের শ্রমিকদের দিয়ে কাজ করিয়ে কম বেতন দিলেও ভারতীয়দের সাথে কোনভাবেই ঝামেলা করতে পারতোনা সে।

অবশেষে অর্থ ও মানব পাচারের অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করে শাস্তির আওতায় আনা হয়েছে।

আপনার যেকোন লেখা প্রকাশ করতে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক ও ফলো করে ইনবক্স করুন; ইউটিউবে নিয়মিত আপডেট পেতে চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করে রাখুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *