নতুন আগত

নরেন্দ্র মোদি বাংলাদেশে গান শিখে এসেছেন

 জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও  সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠানে নরেন্দ্র মোদি বাংলাদেশে গান শিখে এসেছেন বুঝা যায়। জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে বাংলাদেশের উদ্দেশ্যে ভাষণদান কালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বাংলায় অনেক কিছু উচ্চারণ করেন।

অনুষ্ঠানের সমাপ্তি দিনে তিনি তার ভাষণের একপর্যায়ে স্বাধীনতায় শহীদ হওয়া ব্যক্তিদের স্মরণ করেন।  তিনি গোবিন্দ হালদার লেখা গান ”এক সাগর রক্তের বিনিময়ে বাংলার স্বাধীনতা আনলে যারা আমরা তোমাদের ভুলবোনা” । গানটি বাংলায় উচ্চারণ করেন । যদিও সুরেরটান তার প্রতি তেমন ছিল না।

 তিনি তার বক্তব্যকে রস সিক্ত করার জন্য বাঙালির আবেগ কে আপ্লুত করার জন্য। মনপ্রাণ কেড়ে নেয়ার জন্য বারবার বাংলা গান ,বাঙালি কবি , বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বাধীনতার পূর্বে বিভিন্ন ভাষণের উল্লেখযোগ্য ক্ষুরধারা কথাগুলো বাংলায় উচ্চারণ করেন । যেগুলো মূলত তিনি অনুষ্ঠানে যোগ দিবেন বলে এগুলো শিখে এসেছেন বাংলাতে।

 নরেন্দ্র মোদী তার ভাষণে বলেন তিনি বাংলাদেশের স্বাধীনতার সমর্থন করেন । এটাও বলেন মুক্তিযুদ্ধের সময় তার বয়স ছিল ২০থেকে ২২ বছর । মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী ভারতের কেউ কেউ নরেন্দ্র মোদির সাথে এসেছেন বলে তিনি বলেন।

 বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে  স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে গান্ধী শান্তি পুরস্কার দিয়েছেন। সেটি গ্রহণ করেছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বোন শেখ রেহানা।  এর আগে তিনি বাংলাদেশের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন ।

 সকাল সাড়ে দশটায় শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে মোদিকে বহনকারী বিমানটি ।

সেখানে তাঁকে অভ্যর্থনা জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে স্বাধীনতার বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান ভারতের প্রধানমন্ত্রী।  নরেন্দ্র মোদি মুজিব কোট পড়ে আসতে ভুল করেননি ।

এই দিন বিকেলে জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে মুক্তির মহানায়ক সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবর্ষ এবং বাংলাদেশের  স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী ১০  দিনব্যাপী  আয়োজিত অনুষ্ঠানের সমাপনী হয়।  নরেন্দ্র মোদী সহ অন্যান্য পাঁচটি দেশের রাষ্ট্রপ্রধান সরাসরি অংশ নেয়। 

    অন্যান্য  প্রভাবশালী নেতারা আসতে পারেননি বলেই ভিডিও বার্তায় শুভেচ্ছাবাণী পাঠিয়েছেন।  জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্টোনিও গুতেরেস বলেন বাংলাদেশ এর উন্নতি ৫০ বছরে অনেক এগিয়ে গেছে। 

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান অন্য মাত্রায় বাংলাদেশের সাথে বর্তমান সম্পর্ক নিয়ে যাবেন বলে মন্তব্য করেন।  রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের  পক্ষে  পড়ে শুনান দেশটির রাষ্ট্রদূত ।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান তার বার্তায় শুভেচ্ছা বার্তা জানিয়েছেন । তিনি বলেনবাংলাদেশের উন্নয়ন নিজের চোখে দেখতে আসবেন শিগ্রই ।

নতুন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও শুভেচ্ছা বার্তা জানিয়েছেন । তার পক্ষে শুভেচ্ছাবার্তা পাঠ করে শুনান রাষ্ট্রদূত আর মিলার

এক্সিম ব্যাংকের ইসলামিক বিনিয়োগ কার্ড সেবা

যেভাবে এক্সিম ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ড পাবেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *