শিক্ষা বার্তা

মার্কেন্টাইল ব্যাংকের ২০ লক্ষ টাকার এডুকেশন লোন পাবেন যেভাবে

মার্কেন্টাইল ব্যাংক বাংলাদেশের বেসরকারি ব্যাংকগুলোর মধ্যে অন্যতম একটি আর্থিক প্রতিষ্ঠান। ব্যবসায়ী ও চাকরিজীবীদের পাশাপাশি দেশের শিক্ষা খাতে উন্নয়নের লক্ষ্যে মার্কেন্টাইল ব্যাংক শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার জন্য লোন প্রদান করে থাকে। আজকে আমরা জানবো মার্কেন্টাইল ব্যাংকের ২০ লক্ষ টাকার এডুকেশন লোন পাবেন যেভাবে।

এই আর্টিকেলটি সম্পন্ন করার পর মার্কেনটাইল ব্যাংক থেকে ছাত্রছাত্রীরা শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত রাখার জন্য ২০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত লোন পাওয়ার সকল পদ্ধতি এবং পাওয়ার নিয়মগুলি আলোচনা করবো।

দেশের সকল সরকারি বেসরকারি ব্যাংক সমূহের লোন ফিনান্সিয়াল বিভিন্ন সার্ভিস নিয়ে জানার জন্য সাহসী বার্তা ডটকমের ফেসবুক পেজটি লাইক এবং ফলো করে রাখবেন এবং এই সংক্রান্ত কোনো তথ্য প্রয়োজন হলে আমাদেরকে মেসেজ করতে দ্বিধা করবেন না। 

তাহলে চলুন মূল আলোচনায় অর্থাৎ মার্কেনটাইল ব্যাংক থেকে ২০ লক্ষ টাকার শিক্ষা লোন পাওয়ার পদ্ধতি জানার বিষয় ফিরে যাওয়া যাক। 

কারা পাবে মার্কেন্টাইল ব্যাংকের ২০ লক্ষ টাকার শিক্ষাঋণ?

বাংলাদেশী শিক্ষার্থীরা যারা বিদেশে বা দেশের মধ্যে পড়াশোনা করে আরও উচ্চতর ডিগ্রি নিতে চায় তারা মার্কেনটাইল ব্যাংকের শিক্ষা ঋণ সুবিধা গ্রহণ করতে পারে।

অর্থাৎ আপনার যদি বিদেশে পড়াশোনা করতে যেতে ইচ্ছে হয় কিন্তু টাকার অভাবে যাওয়ার সাহস করতে পারছেন না তাহলে অবশ্যই মার্কেন্টাইল ব্যাংকের শিক্ষাঋণের বিষয়ে আপনার জানা উচিত।

মার্কেন্টাইল ব্যাংক শিক্ষাঋণের উদ্দেশ্য:

বাংলাদেশের মেধাবী শিক্ষার্থী যারা প্রয়োজনীয় অর্থের অভাবে দেশ-বিদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা কার্যক্রম চালিয়ে যেতে ব্যর্থ হচ্ছেন তাদের জন্য মার্কেনটাইল ব্যাংক এই শিক্ষা ঋণ কার্যক্রম চালু করেছে। 

দেশ-বিদেশের সাধারণ ও প্রযুক্তিগত যে কোন বিষয়ে অধ্যয়ন করার জন্য দেশ এবং দেশের বাইরে যে কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতকোত্তর কোর্স (সাধারণ / প্রযুক্তিগত) পড়াশোনা করতে এই ঋণ গ্রহণ করা যাবে। 

সর্বোচ্চ কত টাকা পর্যন্ত শিক্ষা ঋণ গ্রহণ করা যাবে?

বাংলাদেশের অভ্যন্তরে যে কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতকোত্তর পর্যায়ে অধ্যয়ন করার জন্য আপনি সর্বোচ্চ 5 লক্ষ টাকা এবং বিদেশে যে কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতকোত্তর কোর্স অধ্যয়ন করার জন্য সর্বাধিক ২০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত শিক্ষা ঋণ প্রদান করবে মার্কেন্টাইল ব্যাংক লিমিটেড। 

কত দিনের মধ্যে পরিশোধ করতে হবে এই ঋণ?

ন্যূনতম ০১ বছর এবং সর্বাধিক ০৬ বছর কোর্সের প্রকৃতির উপর নির্ভর করে ৩ মাস বাড়তে পারে

বয়স সীমা
১৮-২৬ বছর

সুদের হার
প্রতিযোগিতামূলক সুদের হার

কারা পাবে মার্কেনটাইল ব্যাংকের শিক্ষা ঋণ (Mercantile Bank loan facilities)

এখন আমরা জানবো মার্কেনটাইল ব্যাংক থেকে দেশের এবং দেশের বাইরের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করার জন্য শিক্ষার আইন নিতে গেলে কি কি প্রয়োজনীয় যোগ্যতা থাকা প্রয়োজন। 

  • বাংলাদেশী যেকোন শিক্ষার্থী এসএসসি / এইচএসসি / ও-লেভেল / এ-লেভেল দেশে বা বিদেশের যে কোনও স্বীকৃত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে সমমানের ক্ষেত্রে খুব ভাল ফলাফল থাকলে।
  • দেশে বা বিদেশে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর কোর্স করার জন্য দেশে বা বিদেশের যে কোনও স্বীকৃত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে এসএসসি / এইচএসসি / ও-লেভেল / এ-লেভেল বা সমমানের পরীক্ষায় ভাল ফলাফল থাকলে।
  • পিতা / মাতা / অভিভাবক শিক্ষার্থীর সাথে যৌথ আবেদনকারী হবে এবং শিক্ষার ঋণেরর আবেদনের ফরম শিক্ষার্থীর সাথে অভিভাবক / অভিভাবকে স্বাক্ষর করতে হবে।

যেসকল প্রয়োজনে ব্যবহার করা যাবে মার্কেন্টাইল ব্যাংকের এডুকেশন লোন:

  • বিশ্ববিদ্যালয় / কলেজ / ছাত্রাবাসে প্রদেয় ফি এর জন্য
  • বই / সরঞ্জাম / যন্ত্র / ইউনিফর্ম কেনার জন্য
  • বিদেশে পড়াশোনার জন্য ভ্রমণ ব্যয় / প্যাসেজের অর্থ
  • কম্পিউটার ক্রয় – কোর্স শেষ করার জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ
  • বোর্ডিং এবং স্বীকৃত বোর্ডিং হাউস / ব্যক্তিগত বাসস্থানগুলিতে থাকার খরচ মেটাতে

প্রয়োজনীয় কাগজপত্র (মার্কেন্টাইল ব্যাংকের শিক্ষা/র্পাসোনাল লোন)

  • অভিভাবকের সাথে আবেদনকারীর বায়ো-ডেটা
  • আবেদনকারী এবং অভিভাবক উভয়ের বেতন প্রত্যয়নপত্র যদি থাকে
  • সংশ্লিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কর্তৃপক্ষ কর্তৃক প্রদত্ত কোর্সটি যথাযথ ভাবে শেষ করার জন্য আর্থিক প্রয়োজনের অনুলিপি
  • নির্বাচিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রোফাইল
  • অধ্যয়নের জন্য নিয়োগকর্তার এনওসি
  • বিদেশে পড়াশুনার ক্ষেত্রে আবেদনকারীর বৈধ বাংলাদেশী পাসপোর্টের ফটোকপি
  • MBL দিয়ে শিক্ষার্থীদের ফাইল খুলুন

এছাড়া ও মার্কেনটাইল ব্যাংকের “PERSONAL LOAN” সুবিধা আছে (Mercantile Bank loan facilities)

ব্যক্তিগত ঋণ হল একটি EMI ভিত্তিক ঋণ সুবিধা । যে কোনো বাংলাদেশি বেতনভোগী ব্যক্তিদের ব্যক্তিগত আর্থিক প্রয়োজনীয়তা পূরণ করতে এই ঋণ দেওয়া হয় ।


ঋণ সীমা
সর্বনিম্ন ৫০ হাজার , সর্বোচ্চ ২০ লক্ষ টাকা
মোট বেতনের ১০ থেকে ১৫ গুন দেওয়া হয়

মেয়াদ
সর্বাধিক ০৫ বছর

বয়স সীমা
২১-৬০ বছর

সুদের হার
প্রতিযোগিতামূলক সুদের হার।

ভোক্তার অবস্থা
সরকারী / স্বশাসিত সংস্থা / ব্যাংকিং বা নন-ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠান / পাবলিক লিমিটেড সংস্থা / বেসরকারী লিমিটেড সংস্থার কর্পোরেট কাঠামো / বহুজাতিক সংস্থা / স্বনামধন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কর্মচারী।

কর্মদক্ষতা
চাকুরী স্থায়ী হওয়ার ০১ বছর পর

ন্যূনতম আয়
সরকারী চাকুরীজীবীদের জন্য প্রতি মাসে কমপক্ষে ১৫,০০০ / – টাকা। বেসরকারী চাকুরীজীবীদের জন্য প্রতি মাসে কমপক্ষে ২৫,০০০ / – টাকা। যথাযথ দলিল দ্বারা সমর্থিত হলে অন্যান্য আয় বিবেচনা করা যেতে পারে।

প্রয়োজনীয় কাগজপত্র (Mercantile Bank loan facilities)মার্কেন্টাইল ব্যাংকের শিক্ষা/র্পাসোনাল লোন

  • যোগ্য কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে পরিচয় পত্র।
  • জাতীয় আইডি এবং টিআইএন শংসাপত্র
  • প্রতিষ্ঠান থেকে প্রত্যয়ন পত্র
  • গত ৬ মাস ধরে বেতন অ্যাকাউন্টের বিবৃতি
  • পাসপোর্ট, টেলিফোন (টিঅ্যান্ডটি) বিল যদি থাকে তবে এর ফটোকপি
  • অন্যান্য আয়, ডকুমেন্ট দ্বারা সমর্থিত

আপনার জন্য আরও কিছু প্রয়োজনীয় তথ্য:

দেশের ব্যাংক-বীমা শিক্ষা চাকরি সাহিত্য-সাময়িকী সংক্রান্ত বিভিন্ন তথ্য সবার আগে পেতে আমাদের ফেইসবুক পেইজ টি লাইক এবং ফলো করে রাখুন এবং ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করে রাখুন। 

আপনার প্রয়োজনীয় যে কোন তথ্য ও পরামর্শ পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে ম্যাসেজ দিন। আপনার সমস্যার সমাধানে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেওয়ার জন্য যথার্থ চেষ্টা করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *