নতুন আগতশিক্ষা বার্তা

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে নতুন সিদ্ধান্ত: শিক্ষা মন্ত্রী

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে নতুন সিদ্ধান্ত যেটা ছিল তা এদিক ওদিক হতে পারে এক স্মরণ সভায় শিক্ষামন্ত্রী বলেন। শিক্ষামন্ত্রী করণা সংক্রমণ পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার শিক্ষামন্ত্রণালয় মাধ্যমিক উচ্চমাধ্যমিক বিভাগ থেকে জারি করা এক নির্দেশনায় বলেছিলেন করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে থাকলে আগামী ১২ ই জুন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা এবং শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনায় প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি মূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

কিন্তু জাতীয় প্রেসক্লাবে জাতীয় প্রত্যাশা সংগঠনের আয়োজনে মরহুম আইন মন্ত্রী ”অ্যাডভোকেট আবদুল মতিন খসরুর” স্মরণ সভায় শিক্ষামন্ত্রী বলেন করুণা সংক্রমণ পরিস্থিতি যদি নিয়ন্ত্রণে থাকে তাহলেই কেবল নির্ধারিত তারিখে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হবে। তবে পরিস্থিতি অনুকূলে না থাকলে মানুষের স্বাস্থ্য ঝুঁকির মধ্যে ফেলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হবে না বললেন শিক্ষামন্ত্রী ডা: দীপু মনি। এ সময় তিনি আরো বলেন আন্দোলনের মুখে জনগণের জীবন নিয়ে অবহেলা করবে না সরকার।

ডাক্তার দীপু মনি বলেন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেবার ব্যাপারে সরকারের সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া আছে। সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় রেখে যথাসময়ে খুলে দেয়া হবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।

বৃহস্পতিবার ঘোষিত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছিল করণা সংক্রমণ থেকে শিক্ষার্থীদের সুরক্ষার লক্ষ্যে আগের ধারাবাহিকতায় আগামী ১২ জুন পর্যন্ত সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধে থাকবে।এই সময় নিজের এবং অন্যদের করণা সংক্রমণ থেকে সুরক্ষার লক্ষ্যে শিক্ষার্থীরা নিজ বাসস্থানে অবস্থান করবে বাসায় থেকে তারা টেলিভিশন ও অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রমের সাথে সংযুক্ত থাকবে ।নির্দেশনা আরও বলা হয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকা কালিন সময় শিক্ষার্থীদের ভাসায় অবস্থানের বিষয়টি অভিভাবকগন নিশ্চিত করবে। এবং স্থানীয় প্রশাসন বিষয়টি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করবে।

 এর আগে বুধবার সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী ডা: দীপু মনি ভার্চুয়াল এক সংবাদ সম্মেলনে জানান আগামী১৩ ই জুন থেকে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হবে । তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের খুলে দেবার বিষয়টি নির্ভর শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের করোনার টিকা আওতায় আনার উপর।

তিনি বলেন ১২ জুন পর্যন্ত স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকছে,১৩ জুন থেকে খুলে দেয়া হচ্ছে ।

এর আগে তিনি বলেন যদি ১৩ জুন স্কুল-কলেজগুলো খুলে দিতে পারি সে ক্ষেত্রে ২০২১ সালের এসএসসি-এইচএসসি ব্যাচকে অগ্রাধিকার দেয়া হবে। তারা সাপ্তাহে ৬ দিন ক্লাস করবে। যারা ২০২২ সালের এসএসসি এইচএসসি পরীক্ষার্থী তাদের ছুটির দিন ছাড়া সব দিন ক্লাসে আনা হবে । অন্যদের ব্যাপারে শিথিলযোগ্য নিয়ম হবে ।সপ্তাহে এক দিন ক্লাসে আনা হবে বলে তিনি জানান। 

এইদিকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া ও মাদকমুক্ত ক্যাম্পাসের দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। শনিবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্য এর সামনে এই বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় । ছাত্রদলের উদ্যোগে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি ফজলুর রহমানের সভাপতিত্বে সমাবেশে অন্যান্যরা বক্তব্য রাখেন।

করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত প্রবাসীদের জন্য ২০০ কোটি টাকার পুনর্বাসন ঋণ
গবাদিপশু মোটাতাজাকরণে জামানতবিহীন ঋণ সুবিধা কোথায় পাবেন
কর্মসংস্থান ব্যাংক বেকার/অর্ধ বেকারদের ২৫ লক্ষ টাকা আত্মকর্মসংস্থান লোন দিবে

২০২২ সালের এইচএসসি সংক্ষিপ্ত সিলেবাস প্রকাশিত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *