নতুন আগত

সাকিব আইপিএল খেলতে পারবে না এই বছর

 বিসিবি পরিচালক নাঈমুর রহমান দুর্জয় সাকিবের খেলার অনাপত্তিপত্রের পুনর্বিবেচনা করবে বলে জানিয়েছেন ।বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের  আলোচনায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন। হয়ত সাকিব আইপিএল খেলতে পারবেনা এই বছর

ইন্ডিয়ান ক্রিকেট প্রিমিয়ার লিগ বা আইপিএলে  সাকিবের খেলা অনাপত্তিপত্রের পুনর্বিবেচনা করবে বলে জানিয়েছেন ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক বিভাগের প্রধান আকরাম খান। বেফাস মন্তব্য এর কারনে সাকিব আইপিএল খেলতে পারবে না এই বছর

অতএব কারণে সাকিব-আল-হাসান বিসিবির পক্ষ থেকে মন্তব্যের কারণে আইপিএলের মতো একটি প্লাটফর্মে খেলার জন্য এই বছরের মতো আর অনুমতি দেয়া হবে না এটা অনুমেয়। 

তার  আগে যে অনুমতি দেয়া হয়েছিল সেটি বাতিল করতে পারে। বিসিবি এর আলোচনায় এই রকম আবাস পাওয়া যায়।  কারন এর আগেও এই রকম ঘটনা সাকিবের ক্ষেত্রে ঘটেছে।

টেস্ট খেলব না এ কথা কখনো  বলিনি আলোচনায় তিনি এ মন্তব্য করেন । সাকিব তার আলোচনার এক পর্যায়ে একথাও বলেন যে ছুটির অ্যাপ্লিকেশন এর প্রথম টেস্ট খেলতে চান না এ ধরনের কথা তিনি কোথাও বলেননি।

  বরং আইপিএলের সময়টাতে অন্য কোন ম্যাচ না খেলেই সময়টা যদি শুধু টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলা যায় বিশেষ করে  আইপিএল খেলা যায় তাহলেই এইটা পরবর্তী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য একটি উপকারী দিক হবে বলে তিনি মত প্রকাশ করেন । 

 মাশরাফি খেলা ছেড়ে দিয়ে  ক্রিকেটের গুরুত্বর্পুন পদে  এমনটা  মানুষ ভেবেছিলে  সেইরকম টা হয়তো হয়নি।  এবং হয়তো কখনো বিসিবি  প্রেসিডেন্টের চেয়ারে মাশরাফিকে  দেখবে কিন্তু মাশরাফি কখনোই এই ধরণের আলোচনা কারো সাথে করেনি। 

 হালে  শাকিবকে নিয়ে যখন বিভিন্ন আলোচনা  চলছে তার মধ্যে তিনি ভার্চুয়াল কথাবার্তায় বিসিবির প্রেসিডেন্ট হওয়ার বিষয়ে যে মন্তব্য করে তা বিসিবির পরিচালক এবং সংশ্লিষ্টদের মধ্যে এক ধরনের ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

  তিনি জানিয়েছেন আমার মনের কোন একটা ইচ্ছা আছে তবে সাধারন কর্মকর্তা কোচিং স্টাফ হয়ে নয় বরং প্রেসিডেন্ট হতে চান তিনি।

প্রেসিডেন্ট দায়িত্ব পেলে তিনি কী করবেন সেই কথাটুকু বলে ফেলেছেন আলোচনার এক ফাঁকে । বর্তমানে ছুটিতে থাকাকালীন সময়ে সাকিব আল হাসান যুক্তরাষ্ট্রের উইসকনসিনে শহরে শহরে সময় কাটাচ্ছেন।সাকিব আইপিএল খেলতে পারবে না এই বছর এটা সত্য হবে শেষে।

 তিনি যখন এই কথাগুলো বলছেন তখন বাংলাদেশ দল নিউজিল্যান্ডের মাটিতে অবস্থান করে প্রথম ওয়ানডেতে হেরে যায় খুব বাজেভাবে ।

সাবেক ক্রিকেটার আতাহার আলী বলেন  -নিউজিল্যান্ডের ভোলারা অনেক র্শট বল করেছে এবং খেলতে বাধ্য করেছে । বাংলাদেশিরা  বেশ কিছুটা দুর্বল মাটিতে স্লো বলে  বলে লোয়ার উইকেটে খেলে বাংলাদেশ  অভ্যস্ত হয়ে গেছে। 

 বাংলাদেশ দলে সাকিব-আল-হাসান থাকলে হয়তো ব্যবধানটা আরো অন্য রকম দেখা যেত বলে বিশ্লেষকরা মনে করেন ।এর আগে  ২০১৯ সালে নিউজিল্যান্ড সফরের দলের বিপক্ষে ওডিআই খেলেছিলো ডানেডিনে ওই ম্যচে সাকিব ছিল।

শেষ ওডিআই খেলেছিলো সেইখানে ৩৩১ রান টার্গেট অলআউট হয়েছিল ২৪২ রানে। আসলে বাংলাদেশ ধরে সাকিব-আল-হাসান ছাড়া যেন খেই হারিয়ে ফেলে এই কথা  বিশ্লেষকেরা মনে করেন। 

 এর আগে গত ২০  তারিখে করোনার ভ্যাকসিন নিয়েছে সাকিব যুক্তরাষ্টে । দেশে  থাকাকালীন সময়ে নানা ব্যস্ততার কারণে তিনি করোনার টিকা নিতে পারেননি ।

এক্সিম ব্যাংকে তিন বছরে দ্বিগুণ আকর্ষণীয় আমানত প্রকল্প

বেঙ্গল কমার্শিয়াল ব্যাংক এ চাকরির সুযোগ

 

One Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *