চাকুরি ও ব্যবসা

স্বাধীন কঠিন একটি শব্দ, এর অর্থ স্ব–এর অধীন

স্বাধীন কঠিন একটি শব্দ, এর অর্থ স্ব–এর অধীন: সাদিয়া আফরিন ডকুমেন্টেশন এজেন্সি ‘চেকমেট ইভেন্টস’-এর সহপ্রতিষ্ঠাতা ও সিনেমাটোগ্রাফার। ২০১৫ সালে চাকরি ছেড়ে শুরু করেন নিজের কোম্পানি চেকমেট। ফটোগ্রাফি ও সিনেমাটোগ্রাফি নিয়ে কাজ করে চেকমেট ইভেন্টস।

নারী দিবস সামনে রেখে সাহসী বার্তা পাঠকদের তাঁর উদ্যোক্তা হয়ে ওঠার গল্প ও কঠিন সংগ্রামের কাহিনী।

ফটোগ্রাফার হওয়ার স্বপ্নের শুরুটা ছোটবেলা থেকেই। আমার নানা চিকিৎসক ছিলেন, কিন্তু খুব ভালোবাসতেন ছবি তুলতে। শখের ফটোগ্রাফার ছিলেন।

তাঁর কাছ থেকেই আমার মনে প্রথম ভালো লাগা তৈরি হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির পর সেই সুপ্ত ইচ্ছা মাথাচাড়া দেয়। আমার স্বামী আমার বিশ্ববিদ্যালয়জীবনের বন্ধু।

দুজন একসঙ্গে পড়াশোনার ফাঁকে ফটোগ্রাফির শিক্ষায়তন পাঠশালাতে ঢুকি। সেখানের ভালো লাগাটাই বড় স্বপ্নে রূপ নেয়। পরিবার প্রথমে সহজে নেয়নি।

তাঁরা ভাবতে পারেনি এমন কিছু করেও জীবিকা নির্বাহ করা যায়। আমার মা-বাবা দুজনেই চিকিৎসক। তাঁরা আমাকে কখনো বাধা দেননি, তবে কষ্ট পেয়েছেন।

আমি যখন চাকরি ছেড়ে দিলাম নিজে কিছু করব বলে, মাকে ছয় মাস বলিনি। জানতাম কষ্ট পাবেন। হয়েছিলও তা–ই, খুবই কষ্ট পেয়েছিলেন। তবে এখন বোঝেন আমি কী করছি, আমি আমার কাজের প্রমাণ দিতে পেরেছি।

শুরু থেকেই জানতাম এ পথে চলা এত সহজ হবে না। আশাও করেনি, মানুষ আমার কাজকে সাদরে গ্রহণ করবেন। সেই মানসিক প্রস্তুতি শুরু থেকেই ছিল।

কেবল নিজের গতিতে এগিয়ে চলেই আজ একজন নারী উদ্যোক্তা হতে পেরেছি। এ কাজের মূল সমস্যা হলো বাইরের কাজ বেশি। মাঠেঘাটে দৌড়াতে হয়। আর এটা সবারই জানা, বাংলাদেশে বেশির ভাগ জায়গায় নারীর কাজের পরিবেশ তেমন নেই। দেখা গেছে, অনেক জায়গায় একা মেয়ে আমি, আর কেউ নেই।

সব জায়গায় পুরোপুরি পুরুষতান্ত্রিক সুবিধা, ওয়াশরুমের সুবিধা নেই, মানুষের অদ্ভুত চাহনি, সেই সঙ্গে নিরাপত্তা নিয়ে ভয়। এসব মোকাবিলা করতে হয়েছে। তারপরও থামিনি।

অনেক নারীই পিছিয়ে যান:

আমার কোম্পানি চেকমেটে এখন ২৫ জন কাজ করছেন। সবাই ছেলে। বিভিন্ন সময় নারীদের নিয়েছিলাম। তবে তাঁরা যোগ দিয়ে পিছিয়ে গেছেন।

এত বেশি বাইরে কাজ করতে হয়, বাইরে কাজ করার যে অসুবিধা, তা সবাই মোকাবিলা করতে পারেন না। এ কাজে অনেক চ্যালেঞ্জ নিতে হয়। আমি একা মেয়ে হয়ে আমার দল নিয়ে ভারত, ভুটানে গেছি।

নারী ও নারী উদ্যোক্তাদের জন্য পরামর্শ:

অনেক ফিল্ড ওয়ার্ক করতে হয়। ঘরে বসে সিনেমাটোগ্রাফি হবে না, এটা মাথায় রাখতে হবে। অনেক জায়গায় যেতে হবে, যেখানে নারী হিসেবে কোনো সুবিধা পাওয়া যাবে না; মানিয়ে নিতে হবে।

সেই সঙ্গে পারিবারিক সহযোগিতার বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। অনেক সময় রাত হয়ে যায়, পরিবারকে বিষয়টি বুঝতে হবে। আরেকটি বিষয়, সিনেমাটোগ্রাফি খুবই টেকনিক্যাল একটা কাজ।

এ জন্য প্রথমে সঠিক প্রস্তুতি আর প্রশিক্ষণ দরকারের পাশাপাশি অর্থেরও প্রয়োজন। সেই সহযোগিতা পরিবার থেকে পেলে নারীর জন্য এগিয়ে যাওয়া সুবিধার হয়।

এ খাতে কাজ করতে চাওয়া নারী উদ্যোক্তাদের জন্য বলতে চাই, ৭ দিনই ২৪ ঘণ্টার কাজ এটা। সেটা মাথায় রাখতে হবে। উদ্যোক্তা কাজে স্বাধীন হন। এই স্বাধীন কিন্তু কঠিন একটি শব্দ।

এর অর্থ স্ব–এর অধীন। সব নিয়ন্ত্রণ নিজের হাতে। মনে রাখতে হবে, নিজে কিছু করতে চাইলে নিজেকেই করতে হবে। এখানে কারও চোখ ফাঁকি দেওয়ার কিছু নেই। তীব্র ইচ্ছাশক্তির প্রয়োজন।

স্বাধীন কঠিন একটি শব্দ, এর অর্থ স্ব–এর অধীন (সূত্র: প্রথম আলো)

আপনি আরও পছন্দ করতে পারেন-

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *